জসিম উদ্দিন আকাশের“আমার পোড়া দেহ’তে কন্ঠ দিয়েছেন নোলক বাবু

জসিম উদ্দিন আকাশের“আমার পোড়া দেহ’তে কন্ঠ দিয়েছেন নোলক বাবু

দৈনিক প্রবাহবার্তা গতকাল বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ টায় বিডি২৯ মাল্টিমিডিয়া ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ পেয়েছে নতুন মিউজিক ভিডিও ‘আমার পোড়া দেহ’। জসিম উদ্দিন আকাশের কথায় সুর করেছেন এস কে শানু ও সঙ্গীত আয়োজন করেছেন মুসফিক লিটু। গানটিতে কন্ঠ দিয়েছেন কন্ঠশিল্পী নোলক বাবু।মিউজিক ভিডিওতে মডেল হিসাবে কাজ করেছেন আলভী মামুন ও স্নিগ্ধা। গানটির ভিডিও পরিচালনা করছেন সৌমিত্র ঘোষ ইমন ।মিউজিক ভিডিওটি প্রযোজনা করেছেন জসিম উদ্দিন আকাশ। গীতিকার জসিম উদ্দিন আকাশ বলেন, আমার স্বপ্ন আছে আমার লেখা গান গাইবেন বাংলাদেশের প্রতিটি শিল্পী, এই স্বপ্ন নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। আমি বিশ্বাস করি একদিন বিডি২৯ মাল্টিমিডিয়া ও জসিম উদ্দিন আকাশের গান দিয়ে পুরো পৃথিবীর বাংলা ভাষার মানুষের মনে জায়গা করে নিবে। যুগের পরে যুগ বেচেঁ থাকবে আমাদের গান গুলো মানুষের হৃদয়ে। গীতিকার জসিম উদ্দিন আকাশ গান নিয়ে বলেন,আমি অনেক ব ্যস্ত থাকি এতো ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে ও গান লেখি কারণ ভালো লাগা ও ভালোবাসা থেকে আমার গান লেখা কন্ঠশিল্পী নোলক বাবু আমার লেখা গানটি অসাধারণ গেয়েছেন। গানটির সুর, সঙ্গীত আয়োজন, মিউজিক ভিডিও সব মিলিয়ে ‘আমার পোড়া দেহ’ গান ও ভিডিও এ সময়ের দর্শক-শ্রোতার মনে ছাপ ফেলবে বলেই আশা করছি। নোলক বাবু বলেন, জসিম উদ্দিন আকাশের লিখনি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে যার কারনে এই গানটি করা আরও বেশি ভালো লাগার বিষয় হলো, জসিম উদ্দিন আকাশ সুদূরপ্রবাসী হয়ে ও বাংলাদেশের সঙ্গীত নিয়ে চিন্তা করেন এবং একটির পর একটি গান উপহার দেন । আমি চেষ্টা করেছি খুব দরদ দিয়ে গানটি গাওয়ার। আশা করি, শ্রোতাদের ভাল লাগবে। ভিডিও পরিচালক সৌমিত্র ঘোষ ইমন বলেন, গীতিকার ও ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন আকাশের লিখনিতে গানটি সব কিছু মিলে দারুণ হয়েছে। বিডি ২৯ মাল্টিমিডিয়ার আরও ধামাকা নিয়ে আসবো জসিম উদ্দিন আকাশের গান একের পর এক নিয়ে আসবো । মিউজিক ভিডিওতে মডেল হিসাবে কাজ করেছেন আলভী মামুন ও স্নিগ্ধা। আশা করছি দর্শকরা ভালো ভাবে নিবে।

Please Share This Post in Your Social Media

শিল্প-সংস্কৃতির প্রতি অসম্ভব ভালোবাসা ছিলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের। এ ভালোবাসা থেকেই বঙ্গবন্ধু যখন প্রাদেশিক সরকারের শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ছিলেন তখন ১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল তার দূরদর্শিতায় চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন প্রতিষ্ঠার বিল আনা হয়। প্রতিষ্ঠিত হয় আজকের বাংলাদেশে চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (এফডিসি)।

সিনেমা অঙ্গনকে ভালোবেসে এদেশের চলচ্চিত্রের উন্নয়নে আমৃত্যু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, তিনি নিজেও সিনেমাতে অভিনয় করেছেন। বঙ্গবন্ধু অভিনীত সিনেমাটির নাম ‘সংগ্রাম’। ছবিটি পরিচালনা করেন প্রয়াত নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলাম।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র ‘সংগ্রাম’। এতে ছোট্ট এক ভূমিকায় হাজির হয়েছিলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ এই বাঙালি। সে সময়ের চিত্রনায়ক কামরুল আলম খান খসরু ও চাষী নজরুল ইসলামের অনুরোধে ছোট্ট ওই চরিত্রে অভিনয়ে রাজি হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু।

ছবির চিত্রনাট্যের শেষ দিকে ছিল, মুক্তিযুদ্ধের পর সদ্য স্বাধীন দেশের সামরিক বাহিনী বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের নায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে স্যালুট করছে। এই দৃশ্য কীভাবে ধারণ করা যায় সে নিয়ে চিন্তায় পড়েছিলেন পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম। একপ্রকার দুঃসাহস নিয়ে বঙ্গবন্ধুকে ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন ছবিটির নায়ক খসরু। কিন্তু বঙ্গবন্ধু প্রথমে রাজি হননি। পরে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মান্নানকে দিয়ে সুপারিশ করিয়ে অভিনয়ের জন্য তাকে রাজি করানো হয়।

‘সংগ্রাম’ ছবিটিতে নাযক ছিলেন খসরু আর নায়িকা সূচন্দা। ছবিটি ১৯৭৪ সালে মুক্তি পায়।

বঙ্গবন্ধু যে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন